Home জেলা উপজেলা সুবর্ণচরে জমি নিয়ে বিরোধ: ২পক্ষের সংঘর্ষে কলেজ ছাত্রী সহ আহত ৬

সুবর্ণচরে জমি নিয়ে বিরোধ: ২পক্ষের সংঘর্ষে কলেজ ছাত্রী সহ আহত ৬

606
সংঘর্ষে ভুক্তভোগি আহতদের কয়েকজন। ছবি- সুবর্ণ বার্তা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ নোয়াখালী সুবর্ণচরে জমি সংক্রান্ত  শুত্রুতার জের ধরে ২ কলেজ ছাত্রী সহ আহত হয়েছে ৬ জন। সুবর্ণচর উপজেলার ২ নং চরবাটা ইউনিয়নের চরবাটা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। আহত ২ কলেজ ছাত্রী সৈকত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে অধ্যায়নরত। ভুক্তভোগিরা অভিযোগ করেন, সুবর্ণচর উপজেলার ২ নং চরবাটা ইউনিয়নের চরবাটা গ্রামের আনোয়ার বক্সের ছেলে আব্দুল কুদ্দুস দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের মৃত জেবল হকের জমি দখলের পায়তারা করছে। ৫মে রবিবার দুপু্র ২ টার দিকে অভিযুক্ত আব্দুল কুদ্দুস এবং তার ৪ ছেলে আব্দুল্যাহ(৩৫), আজাদ(৩৩), মিজান(৩১), মাসুদ(২৮)সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনের একটি দল নিয়ে মৃত জেবল হকের দখলিয় ও মালিকীয় জমি জবর দখল করে ঘর তুলতে চাইলে মৃত জেবল হকের স্ত্রী রাবেয়া বেগম ও তার ছেলে নুরুল হক(২৫) বাধা দেয়। এসময় অভিযুক্তরা দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে তাদেরকে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে।

খবর পেয়ে জেবল হকের ছেলে ফয়সাল উদ্দিন(১৫) কলেজে পড়ুয়া মেয়ে আয়েশা আক্তার (১৬), হাজেরা খাতুন(১৮) আহতদের বাঁচাতে ঘটনাস্থলে গেলে তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে এবং কলেজ ছাত্রীদের শ্লিলতাহানীর চেষ্টা করে। পরে এলাকাবাসি এসে আহতদের উদ্ধার করে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে আহতরা  হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

এ ঘটনায় চরজব্বার থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। চরজব্বার থানার এসআই মো. শাহেদ  বলেন, ঘটনায় উভয় পক্ষের ৬ জন আহত হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ বাদী হয়ে মামলা করেনি। মামলা করলে আমরা আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।

স্থানীয়রা জানান অভিযুক্ত আব্দুল কুদ্দুস বিরুদ্ধে  খুন, ডাকাতি, নারী নির্যাতনসহ ৮/১০ টি মামলা রয়েছে। মামলা নং ১৮০/২০১৫(হত্যা মামলা), ৫১৯/১৮(হামলা এবং ছিন্তাই), নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা নং ৯৬২, পিটিশন মামলা নং ১৩৭/১০ সহ একাধিক মামলা হয়েছে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগি নুরুল হক বলেন, আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন থেকে আব্দুল কুদ্দুস আমার বাবার সম্পত্বি আত্বাসাতের চেষ্টা করে আসছিলো। আমার বাবা মারা যাওয়ার পর থেকে আব্দুল কুদ্দুস আমাদেরকে উচ্ছেদ করা চেষ্টা করে এমনকি নানা সময় আমাদেরকে নির্যাতন চালিয়ে আসছে। আমরা একাধিকবার স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বার সহ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও কোন সুফল পায়নি, আমরা বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। উপযুক্ত বিচারের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক সহ স্থানীয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।  এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও জানান আহতরা।

নুরুল হক আরো বলেন চরজব্বার থানায় এ ঘটনায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

অভিযুক্ত আব্দুল কুদ্দুসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এসব মিথ্যা বানোয়াট, তারা আমার নামে কুৎসা রটাচ্ছে।

Facebook Comments