Home খেলা শেখ হাসিনার নামে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম

শেখ হাসিনার নামে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম

104
SHARE
প্রস্তাবিত শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নকশা। ছবি- ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত

মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে “শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম” নির্মাণের জন্য জমির বরাদ্দ হয়ে আছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে কমমাত্র মূল্যে রাজউক থেকে বিসিবিকে ৩৭.৪৯ একর জমি বরাদ্দ দিয়েছে। এখন অপেক্ষা শুধু স্টেডিয়ামের নির্মাণকাজ শুরুর। যদিও আইকনিক এই স্টেডিয়াম নির্মাণের পূর্বে অনেক আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে হবে বিসিবিকে।

জমি বুঝে নেওয়া, স্টেডিয়ামের নকশা চূড়ান্ত ও অর্থের সংস্থান করা। এই অর্থের খোঁজেই শনিবার বিসিবির স্টেডিয়াম বাস্তবায়ন সমন্বয় কমিটি প্রথম সভায় বসেছিল। কমিটির অন্যতম সদস্য বিসিবি মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, সহজ শর্তে ব্যাংক লোন নিয়ে স্টেডিয়াম তৈরি করা হবে। এজন্য দেশে-বিদেশে যোগাযোগ করা হচ্ছে। যেখান থেকে কম সুদে টাকা পাওয়া যাবে, সেখান থেকেই লোন নেওয়া হবে।

প্রস্তাবিত শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নকশা।

রাজউকের কাছ থেকে জমি বুঝে নেওয়ার পর স্টেডিয়াম নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই করতে হবে। এরপর ব্যাংক লোন পাস করাতে নকশা চূড়ান্ত করা হবে বলে জানান জালাল ইউনুস। এই কার্যক্রম দ্রুত এগিয়ে নিতে এ মাসেই রাজউকের কাছ থেকে জমির দখল বুঝে নিতে চাচ্ছে বিসিবি।

এ সম্পর্কে কমিটির চেয়ারম্যান মাহাবুব আনাম বলেন, ‘পজেশন পেলেই আমার কাজ গতি আনতে পারব। মাঠটি প্রটেক্ট করা, একটা সাইট অফিস করা, অন্যান্য যে পরিকল্পনা রয়েছে সেগুলো সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে। আমাদের ইচ্ছা এ স্টেডিয়ামটি শুধু এই অঞ্চলেই নয়, পুরো বিশ্বের মধ্যে সুন্দর হবে। যেহেতু এটা গ্রিন ফিল্ড স্টেডিয়াম, সেহেতু এখানে আমাদের অনেক কিছু করার সুযোগ রয়েছে। আন্তর্জাতিক মানের স্টেডিয়াম নির্মাণের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন পরামর্শক প্রতিষ্ঠানকে নিযুক্ত করতে আন্তর্জাতিক টেন্ডার করা হবে। ধাপে ধাপে কাজগুলো করতে চাই আমরা।’

পূর্বাচলে প্রস্তাবিত শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম নির্মাণের জন্য আনুমানিক বাজেট ধরা হয়েছে ৮০০ কোটি টাকা। বিভিন্ন ব্যাংকে বিসিবির এফডিআর করা আছে ৪০০ কোটি টাকার ওপরে। যদিও স্টেডিয়াম নির্মাণে সঞ্চিত টাকায় হাত দিতে চায় না বিসিবি।

জালাল ইউনুস জানান, ‘বোর্ডের ফান্ডে হাত দিলে দেউলিয়া হয়ে যেতে হবে। সেক্ষেত্রে দেশের ক্রিকেট বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে। বোর্ডের কার্যক্রম ঠিক রেখে স্টেডিয়াম নির্মাণের জন্য সম্পূর্ণ আলাদা ফান্ড সংগ্রহ করতে হবে। সেভাবেই আমরা টাকা সংগ্রহের উদ্যোগ নিতে চাই।’ আগামী শীতের আগে নির্মাণকাজে হাত দেওয়া সম্ভব হবে না।’ এর আগে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছিলেন, তিন বছরের মধ্যেই পূর্বাচলের স্টেডিয়াম নির্মাণকাজ শেষ করতে চান তারা।

সুত্র-দৈনিক সমকাল

 এআর

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here