Home অাইন আদালত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম আসলেই কেন? কিভাবে কাজ করে? (ভিডিও সহ)

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম আসলেই কেন? কিভাবে কাজ করে? (ভিডিও সহ)

297
election in bangladesh 2019

ইলেকট্রনিক ভোটিং ইংরেজি: Electronic voting) আধুনিক বিশ্বে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ভোট প্রয়োগ বা সংশ্লিষ্ট ভোটারদের স্বীয় মতামত প্রতিফলনের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে পরিচিত। ভোট প্রয়োগে ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি বা মেশিন অণুসৃত হয় বিধায় সামগ্রিক প্রক্রিয়াটি ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম নামে পরিচিত। এর অন্য নাম ই-ভোটিং। ইলেকট্রনিক প্রক্রিয়ায় এটি একাধারে সঠিকভাবে ভোট প্রয়োগ ও সয়ংক্রিয় ভাবে দ্রুততার সাথে ভোট গণনা করতে সক্ষম। এছাড়াও, ভোট গ্রহণে স্বচ্ছতা এবং উপযুক্ত ক্ষেত্র হিসেবে ক্রমশঃই সমগ্র বিশ্বে এটি জনপ্রিয়তা অর্জন করতে চলেছে।

ভোট প্রদান পদ্ধতি : ভোট গ্রহণের স্থান হিসেবে ভোট কেন্দ্রেই মূলতঃ ইভিএম ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও ইন্টারনেট, ব্যক্তিগত কম্পিউটার নেটওয়ার্ক, টেলিফোন ব্যবহার করেও ই-ভোটিং প্রয়োগ করা সম্ভবপর। পাঞ্চ কার্ড, অপটিক্যাল স্ক্যানার ব্যবহৃত হয় নতুনতর অপটিক্যাল স্ক্যান ভোটিং পদ্ধতিতে । এ পদ্ধতিতে একজন ব্যালট পেপারকে চিহ্নিত করে ভোট প্রদান করে।
অন্যদিকে ডিআরই ভোটিং পদ্ধতিতে একটিমাত্র মেশিনের সাহায্যে ভোট সংগ্রহ ও গণনা কার্যক্রমে ব্যবহার করা হয়।
ব্রাজিল এবং ভারতে সকল ভোটার সকল ধরনের নির্বাচনে ব্যবহার করে থাকেন। এছাড়াও ভেনেজুয়েলা এবং যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপকভাবে ডিআরই ভোটিং পদ্ধতির প্রচলন রয়েছে।
নেদারল্যান্ডে ই-ভোটিং কার্যক্রমের প্রয়োগ হয়েছে। তবে, জনগণের আপত্তির মুখে তা প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়েছে ডাচ সরকার। ইন্টারনেটের মাধ্যমে ভোট প্রয়োগ ক্রমশঃই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। যুক্তরাজ্য, এস্তানিয়া এবং সুইজারল্যান্ডে সরকারী নির্বাচনসহ রাজনৈতিক বিষয় সম্পর্কে জনমত গ্রহণের মাধ্যম গণভোটে এর ব্যবহার হয়ে থাকে। এছাড়াও, কানাডার পৌর নির্বাচন এবং যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সের দলীয়ভাবে প্রাথমিক নির্বাচনের জন্য ইভিএমের মাধ্যমে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হয়।
ইভিএম ব্যবহার : ভোট কেন্দ্র কিংবা ইন্টারনেটের মাধ্যমে ইলেকট্রনিক ভোটিং প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। নিম্নে উল্লেখিত জোট কিংবা দেশসমূহে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের সাহায্যে ইতোমধ্যেই ভোট নেয়া হয়েছে।
সেগুলো হলোঃ- অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাজ্য, বেলজিয়াম, ব্রাজিল, কানাডা, এস্তোনিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ফ্রান্স, জার্মানী, ভারত, আয়ারল্যান্ড, ইটালী, নেদারল্যান্ড, নরওয়ে, পেরু, রোমানিয়া, ভেনেজুয়েলা এবং ফিলিপাইন।

Facebook Comments